ঢাকা, রবিবার, মে ২৬ ২০১৯,


শিরোনাম
যতদিন বেঁচে থাকি আপনাদের সেবা করে যাবো: ডা.এম,এ তাহের     বঙ্গবন্ধু পরিষদ জাপান শাখার কমিটি অনুমোদিত     কচুয়ায় শিলাস্থান একতা সমাজ সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র কোরআন শরীফ বিতরন     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ:চাঁদপুর জেলা কমিটি গঠন-সভাপতি আরফাদ আহমেদ হিমেল,সম্পাদক এস,এম, সারোয়ার     কচুয়ায় বিশিষ্ট সমাজ সেবক মরহুম শামছুল হক প্রধানের মাগফিরাতের জন্য দোয়া কামনা     দারোগার প্রতি অভিমান, দারোগার প্রতি ভালোবাসার টান     নতুন আশার উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মো: নুরুল ইসলাম মাষ্টার কে সাংবাদিক দের পক্ষ থেকে অভিনন্দন     নতুন আশার উপদেষ্টা সম্পাদক নির্বাচিত মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম মাষ্টার     পহেলা বৈশাখের ইতিহাস :জুয়েল তরফদার     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন    

পাল্টে দেবে আপনার মানসিকতা আপন হিজড়ার গল্পে

মো:আকাশ মিয়াজী | ১০:৫০ মিঃ, মার্চ ১৮, ২০১৮



 সাধারণত হিজড়া দের নাম শুনলে অনেকের মাঝে বিরূপ ধারণা সাবাবিক ভাবে চলে আসে। কিন্তু এদের মাঝেও এমন কিছু ব্যক্তিত্ব আছে যা আমাদের অজানা। কথায় আছে- কারো সাথে না মিশলে জানা যায়না তার চরিত্র বা কর্মকান্ড। না বুঝে কথা বলাও ঠিক না, এমনি এক অসাধারণ ব্যক্তিত্ব হিজড়াদের “গুরু” আপন।

 নিজের পরিবারের মত উত্তরার হিজড়া  এক অংশের গুরু 'আপন' 'সহ তার শীষ্য এবং অন্য হিজড়াদের সাথে মিশে তাদের আসল চরিত্র বা কর্মকান্ড সম্পর্কে জানার চেষ্টা করি। যদিও আমরা তাদের কর্মকান্ডকে অন্যায় বলে থাকি, তারপরেও কিছু কথা থেকে যায়। তাতে দেখা গেছে তার অর্জিত টাকার বেশির ভাগ দেওয়া হয় তার সাথে থাকা তার শীষ্যদের তা দিয়ে তাদের পরিবারের ভাই-বোনদের লেখাপড়া ও বাবা-মায়ের ভরণ-পোষণের কিছু চাহিদা  মিঠে

সেই সাথে দেখা যায়- “গুরু” আপনের বসবাসস্থল তুরাগের বাউনিয়া বাদালদি এলাকায় অনেক গরীব দুঃখীদের মাঝে খাদ্য বস্ত্রসহ নানা ভাবে বিপদে আপদে পাশে দেখা যায় “গুরু” আপনকে। বিভিন্ন গরীব মানুষের ছেলে মেয়েদের বিয়েসহ নানা অনুষ্ঠানে নিরসার্থ ভাবে নাচ গান করে অতিথিদের মাঝে আনন্দ প্রদান করে থাকে তার শীষ্য এবং দাওয়াতে গিয়ে পরিবারের কাজে লাগে এমন বড় ধরণের উপহার ও দিয়ে থাকেন তিনি।

বাউনিয়া বাদালদি বাইতুন নুর মসজিদের সাধারন সম্পাদক হাজি মো ইদ্রিস জানান, এই আপন হিজড়া আমাদের মসজিদসহ আশে পাশের প্রায় সকল মসজিদে অনুদান দিয়ে থাকেন। তার ব্যবহার অনেক ভালো, আমরা তাদের ভালো হিসেবে জানি। শুধু ভাল না ভালর ভিতর অনেক ভাল।

প্রতিবেদক তাদের সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাওয়ার জন্য গোপনে অনুসন্ধান করে, অনুসন্ধানে বেড়িয়ে আসে নানা চাঞ্চল্য কর সব কাহিনী, তাতেই অন্যদিকে মোড় নেয় খবর। শুধু উত্তরাতেই নয় রাজধানীর আনাচে কানাচে ভরে আছে “হিজড়া নামধারী পুরুষ”, তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে যায় ছোট বড় ব্যবসায়ীরা। তবে আপন হিজড়ার নামে কোন বাড়ি আছে কি না তা পাওয়া যায়নি।

জানা যায়, তাদের অসৎ টাকায় রাজধানীসহ নিজ জেলায় একের অধিক বহুতল বাড়ি। হিজড়াবেশের পরেও রয়েছে নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে সম্পর্ক। অনুসন্ধানে দেখা যায়, উত্তরার সব থেকে বড় গুরু যার নাম শুনলে উত্তরাসহ রাজধানীর প্রকৃত হিজড়াদের মাঝে শুরু হয় আতঙ্ক। যার নাম “মোঃ ইব্রাহিম/কচি হিজড়া”। তুরাগ থানা, উত্তরা পশ্চিম থানা, রমনা থানাসহ কয়েকটি থানায় তার নামে রয়েছে হত্যাসহ কয়েকটি মামলা। কিন্তু তিনি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে উত্তরাসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায়। তার নিজের সন্ত্রাসী বাহিনীও রয়েছে যাদের দিয়ে ঐ সব সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে থাকে।





Designed & Developed by TechSolutions BD