ঢাকা, বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২ ২০১৯,


শিরোনাম
যতদিন বেঁচে থাকি আপনাদের সেবা করে যাবো: ডা.এম,এ তাহের     বঙ্গবন্ধু পরিষদ জাপান শাখার কমিটি অনুমোদিত     কচুয়ায় শিলাস্থান একতা সমাজ সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র কোরআন শরীফ বিতরন     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ:চাঁদপুর জেলা কমিটি গঠন-সভাপতি আরফাদ আহমেদ হিমেল,সম্পাদক এস,এম, সারোয়ার     কচুয়ায় বিশিষ্ট সমাজ সেবক মরহুম শামছুল হক প্রধানের মাগফিরাতের জন্য দোয়া কামনা     দারোগার প্রতি অভিমান, দারোগার প্রতি ভালোবাসার টান     নতুন আশার উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মো: নুরুল ইসলাম মাষ্টার কে সাংবাদিক দের পক্ষ থেকে অভিনন্দন     নতুন আশার উপদেষ্টা সম্পাদক নির্বাচিত মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম মাষ্টার     পহেলা বৈশাখের ইতিহাস :জুয়েল তরফদার     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন    

ভারতের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দলিত প্রার্থীদের গুরুত্ব যে কারণে

demo | ১২:৪৬ মিঃ, নভেম্বর ৬, ২০১৭



ইনস্টাগ্রাম থেকে নেওয়া।লেদারের জ্যাকেট গায়ে ও দস্তানা হাতে দ্রুত বাইক নিয়ে ছুটে চলেন তিনি। নাম মারালা ইয়াজারলু। ইরান থেকে ভারতে এসেছেন। এমবিএ ও পিএইচডি করে পেশা জীবনের শুরু সেখানেই। ফ্যাশনে আগ্রহী ইয়াজারলু মোটরবাইক চালিয়ে ৪৫টি দেশ ভ্রমণ করতে চান। দেড় বছরে ৭টি মহাদেশ পাড়ি দেওয়ার এ গল্পের শুরু এ বছরের ১৫ মার্চ। কয়েকটি দেশ পাড়ি দিয়ে এখন লাতিন আমেরিকার দেশ পেরুতে অবস্থান করছেন। সুপারবাইক চালিয়ে বাঁধ ভাঙার গল্প তিনি শোনাতে চান সবাইকে। কাজ করতে চান নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে।

ইরানে জন্ম ও বেড়ে ওঠা। ইয়াজারলু ২০০৪ সালে আসেন ভারতের পুনেতে। তিনি ভারতে আসার পরই মোটরবাইক চালানো শুরু করেন। কারণ ইরানে নারীদের বাইক চালানোর অনুমতি নেই। ৮০০ সিসির বিএমডব্লিউ জিএস বাইকে চড়ে তিনি ১ লাখ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে চান। ১০ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দেওয়ার অবিশ্বাস্য গল্প অনেক সীমাবদ্ধতাকে হার মানিয়েছে।

সীমাবদ্ধতার পরীক্ষা! 
বিশ্বভ্রমণের অংশ হিসাবে ইয়াজারলু অ্যান্টার্কটিকায় তুষার ও বরফের মধ্যও বাইক চালাতে চান। এর আগেও সেখানে বাইক চালানোর ইচ্ছে পূরণ হয়নি ছোট বাইকের কারণে। সেখানে একটি নৌকায় এক মাস কাটানোর পরিকল্পনা করেছেন তিনি। তিনি যাত্রাপথে ইরানেও যেতে চান। যদিও যেখানে নারীদের মোটরসাইকেল চালানোর কোনো অনুমতি নেই।

দুঃসাহসিক অভিযানে আগ্রহী
রোমাঞ্চকর দুঃসাহসিক অভিযানের প্রতি বরাবরই আগ্রহী ইয়াজারলু। তার ভ্রমণ সঙ্গী ছিলেন আলোকচিত্রী তথ্যচিত্র নির্মাতা ৪২ বছর বয়সী পঙ্কজ ত্রিবেদী। সমস্যা সংকুল অনেক পথ পাড়ি দিতে হয়েছে। তবে এরপরও ব্যাকআপ গাড়ি এবং বিপদে সাহায্যের জন্য তার সমর্থনে কাউকে সঙ্গে নেননি ইয়াজারলু।

তিন দেশ শেষ, এখন পেরুতে
পঙ্কজ ত্রিবেদীকে নিয়ে এ বছরের ১৫ মার্চ যাত্রা শুরু করেন মারাল ইয়াজারলু। দুজনের এ মিশনের প্রথম পর্যায় শেষ হয় মিয়ানমার, থাইল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া পাড়ি দেওয়ার পর। ইয়াজারলা ও ত্রিবেদী এই সময়ে পেরুতে অবস্থান করছেন। তাঁরা এখন যাত্রার দ্বিতীয় পর্যায়ে আছেন। এ যাত্রায় তাঁরা কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো পাড়ি দেবেন।





Designed & Developed by TechSolutions BD