ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জুন ২৭ ২০১৯,


শিরোনাম
যতদিন বেঁচে থাকি আপনাদের সেবা করে যাবো: ডা.এম,এ তাহের     বঙ্গবন্ধু পরিষদ জাপান শাখার কমিটি অনুমোদিত     কচুয়ায় শিলাস্থান একতা সমাজ সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পবিত্র কোরআন শরীফ বিতরন     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ:চাঁদপুর জেলা কমিটি গঠন-সভাপতি আরফাদ আহমেদ হিমেল,সম্পাদক এস,এম, সারোয়ার     কচুয়ায় বিশিষ্ট সমাজ সেবক মরহুম শামছুল হক প্রধানের মাগফিরাতের জন্য দোয়া কামনা     দারোগার প্রতি অভিমান, দারোগার প্রতি ভালোবাসার টান     নতুন আশার উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মো: নুরুল ইসলাম মাষ্টার কে সাংবাদিক দের পক্ষ থেকে অভিনন্দন     নতুন আশার উপদেষ্টা সম্পাদক নির্বাচিত মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম মাষ্টার     পহেলা বৈশাখের ইতিহাস :জুয়েল তরফদার     বঙ্গবন্ধু ছাত্র একতা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন    

নতুন চমকে নারী সংরক্ষিত এমপি প্রার্থী আইরিন খান

নিজস্ব প্রতিনিধি। | ০৭:৫১ মিঃ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯



জনপ্রিয় কবি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আইরিন খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স সম্পূর্ণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে তাঁর ব্যক্তিগত পরিচয় হয়। তখন থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্নেহধন্যে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন।

১৯৯০ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ডাকসু নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন।বর্তমানে আইরিন খান বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য। ওয়ান ইলেভেনে আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে আইরিন খান সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন । প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সাথে থেকে ওয়ান ইলেভেনের সময় রাজপথে আন্দোলন করেছেন। আইরিন খানকে জিল্লুর রহমান নিজের মেয়ের মতোই দেখতেন এবং নিজের মেয়ে বলে ডাকতেন।

জিল্লুর রহমান আইরিন খানকে বলেছিলেন, তোমার মত শিক্ষিত, ভদ্র, মার্জিত মেয়ে আমাদের রাজনীতিতে ভীষণ প্রয়োজন। ২০০৮ নির্বাচনের পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংরক্ষিত নারী আসনে আইরিন খান কে তালিকাভুক্ত করেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত নারকীয় হত্যাকাণ্ড ঘটে পিলখানার। পিলখানা হত্যাকান্ডে নিহত দুজন শহীদ সেনা অফিসার সম্মানার্থে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদের মাতাকে মনোনয়ন দেয়ার কারণে আইরিন খান এর নাম তালিকা থেকে বাদ পড়ে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে  ভবিষ্যতে মনোনয়ন দেয়ার আশ্বাস দেন এবং দলীয় বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সক্রিয় ভূমিকা রাখার নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে,কবিতা, মিছিল মিটিং এর প্রচার প্রচারণা দলীয় বিভিন্ন কর্মকান্ড  চালিয়ে যাচ্ছেন। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে সরাসরি নির্বাচন করার জন্য আইরিন খান মনোনয়ন ফরম তুলেন। ওই আসন থেকে আইরিন খান কে মনোনয়ন না দিয়ে অন্য একজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। দলীয় নির্দেশনা অনুযায়ী আইরিন খান জাতীয় নির্বাচনে নৌকার পক্ষে গ্রামে গঞ্জে, অলিতে-গলিতে, পাড়ায়-মহল্লায় কাজ করেন। আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য বিশেষ অবদান রাখেন।

আইরিন খান সংরক্ষিত মহিলা আসনে ফরিদপুর ১ থেকে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন।
সংরক্ষিত মহিলা আসনে পাওয়া নিয়ে তিনি জানান, দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে সুযোগ দেয় তাহলে আমি এমপি হতে পারবো এবং মানুষের খেদমত করতে পারবো। আমি বঙ্গবন্ধুর সৈনিক আমি জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু, জননেত্রী শেখ হাসিনা নিয়ে কবিতা লিখেছি, আমি সারাজীবন বঙ্গবন্ধুকে ভালোবেসে যাবো। তার আদর্শে চলবো। আজ বিশ্বের বুকে বাংলাদেশ উন্নত দেশ হিসাবে মর্যাদা পেয়েছে, এক মাত্র মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য।

রাজনীতিতে তার অবদান প্রসজ্ঞে তিনি বলেন, আমি যখন থেকে রাজনীতি করা শুরু করছি তখন থেকে সাধারণ মানুষের খেদমত করে আসছি। স্কুল, মাদ্রাসা বিভিন্ন অনুষ্ঠান যা পারতেছি সহযোগিতা করে আসছি সব সময়। আমি আপনাদের সকলের দোয়ায় ভালো আছি সবাই মিলে আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেনো মহিলা সংরক্ষিত আসনের এমপি হতে পারি আপনাদের সকলের ভালোবাসা নিয়ে সামনো এগিয়ে যেতে চাই।





Designed & Developed by TechSolutions BD